বিজ্ঞপ্তি:
Welcome To Our Website...
করোনা: অক্সফোর্ড-স্পুতনিক টিকার সংমিশ্রণে ট্রায়াল

করোনা: অক্সফোর্ড-স্পুতনিক টিকার সংমিশ্রণে ট্রায়াল

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে আরও সুরক্ষা নিশ্চিত করতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং স্পুতনিক-৫ টিকার সংমিশ্রণে পরীক্ষা চালানোর পরিকল্পনা করেছেন যুক্তরাজ্য ও রাশিয়ার বিজ্ঞানীরা।

একই বৈশিষ্ট্যের দুইটি টিকা মিলিয়ে করোনা বিরুদ্ধে আরও ভাল প্রতিরোধ ক্ষমতা নিয়ে আসতে পারে বলে ধারণা করছেন তারা। শুক্রবার (১১ ডিসেম্বর) এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন বিবিসিতে প্রকাশিত হয়েছে।

দুই টিকা মিলে এই ট্রায়াল রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত হবে। ট্রায়ালে অংশ নেওয়া স্বেচ্ছসেবকদের বয়স ১৮ এর বেশি হবে। তবে এটি পরিষ্কার নয়, এই পরীক্ষার সঙ্গে কতজন স্বেচ্ছাসেবক জড়িত থাকবেন।

সম্প্রতি অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার দাবি করেছে, তাদের টিকা করোনা প্রতিরোধে সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং কার্যকর।

গবেষকরা এখন অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা প্রবীণ ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে কতটা কার্যকারি এ সম্পর্কিত তথ্য সংগ্রহ করছেন। এরপর যুক্তরাজ্যের মেডিসিনস অ্যান্ড হেলথকেয়ার প্রোডাক্টস রেগুলেটরি এজেন্সির (এমএইচআরএ) অনুমোদনের অপেক্ষা।

অক্সফোর্ড-স্পুতনিক টিকা সংমিশ্রণ বিষয়ে অ্যাস্ট্রাজেনেকা বলছে, অ্যাডিনোভাইরাস টিকাগুলির সংমিশ্রণে ফলে আরও ভালো প্রতিরোধ ও সুরক্ষা পাওয়া যায় কিনা তা খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে।

আশা করা হচ্ছে, বিভিন্ন টিকার সংমিশ্রণ ভাইরাসটির বিরুদ্ধে শক্তিশালী বা দীর্ঘস্থায়ী প্রতিরোধ ব্যবস্থা গড়ে তুলবে।

অক্সফোর্ডের টিকার প্রথমে অর্ধেক ডোজ এবং তারপরে একটি পূর্ণ মাত্রার ডোজ দেওয়ার ফলে আরও ভালো ফল পাওয়া গেছে। আর দুই টিকার সংমিশ্রণকে  এর ব্যাখ্যা হিসেবেও ধরা হচ্ছে।

ভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন দিক থেকে আসা চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় আরও ভালো ফলাফলের আশায় ‘দুই টিকার সংমিশ্রণ’ পরিকল্পনা করা হয়েছে।

ব্রিটেনের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকা কোম্পানির যৌথ উদ্যোগে করোনাভাইরাসের টিকা তৈরি করছে। অন্যদিকে মস্কোর গামালিয়া গবেষণা ইনস্টিটিউট রাশিয়ান স্পুতনিক-৫ টিকা তৈরি করেছে। উভয়ই টিকায় সারস-কোভি-২ স্পাইক প্রোটিনের জিনগত উপাদান রয়েছে।

এদিকে ফাইজার-বায়োএনটেকের তৈরি করোনা টিকা যুক্তরাজ্য, কানাডা, বাহরাইন, সৌদি আরবে অনুমোদন দিয়েছে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা টিকাটি ব্যবহারে সুপারিশ করেছেন।

গত আগস্টে রাশিয়া বিশ্বে প্রথম দেশ হিসেবে টিকার নিবন্ধন দিয়েছিলো। বর্তমানে দেশটির তৈরি টিকা স্পুতনিক রাশিয়ানদের মাঝে গণহারে প্রয়োগ করা হচ্ছে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা বলেছে, এই মহামারিতে বিশ্বজুড়ে শিল্প পার্টনার, সরকার এবং বিভিন্ন গবেষণা প্রতিষ্ঠান সাথে কাজ করছে। খুব শীঘ্রই আমরা রাশিয়ার গামালিয়া গবেষণা ইনস্টিটিউটের সাথে কাজ শুরু করব; যাতে করে দুটি অ্যাডেনোভাইরাস টিকা সফলভাবে মিশ্রণ করা যায়।

Please Share This Post in Your Social Media




কারিগরি সহায়তা: AMS IT BD