বিজ্ঞপ্তি:
দৈনিক শাহনামার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। জাতীয়, রাজনীতি, খেলাধুলা, বিনোদন সহ সকল সংবাদের সর্বশেষ আপডেট জানতে ভিজিট করুন www.shahnamabd.com
সংবাদ শিরোনাম :

অভিমান নিয়ে মঞ্চ ত্যাগ করলেন এবায়দুল হক চাঁন

অভিমান নিয়ে মঞ্চ ত্যাগ করলেন এবায়দুল হক চাঁন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

বরিশাল মহানগর বিএনপির ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন করার লক্ষে তথ্য সংগ্রহ ফরম বিতরণ অনুষ্ঠানের মঞ্চে কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও বরিশাল দক্ষিণ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এবায়দুল হক চাঁনকে অতিথিদের আসনের পিছনে বসতে দেওয়ায় অভিমান নিয়ে মঞ্চ থেকে এবায়দুল হক চাঁন নেমে যাওয়ার নেতাকর্মীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন। তবে নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদের জন্য মঞ্চে অতিথিদের সাথে আসন রাখা হলেও কেন এবায়দুল হক চাঁনের জন্য পিছনে আসন রাখা হলো। এনিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে নানা গুঞ্জন দেখা দিয়েছে। আজ রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় নগরের সদর রোডে বিএনপির দলীয় কার্যালয়ের সামনে ফরম বিতরণ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব এ্যাড. রুহুল কবির রিজভী। এবিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মহানগর বিএনপির একাধিক নেতাকর্মীরা বলেন, নিজের মধ্যের বিরোধ থাকার কারনেই মনে হয় এবায়দুল হক চাঁন ভাইর জন্য মঞ্চের পিছনে চেয়ার রাখা হয়েছে। তাই তিনি মনে কষ্ঠ নিয়ে মঞ্চ থেকে নেমে চলে যান। তারা আরো বলেন, দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব এ্যাড. রুহুল কবির রিজভী মহানগর বিএনপির ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন করার লক্ষে তথ্য সংগ্রহ ফরম বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেন সেখান থেকে কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য এবায়দুল হক চাঁন কাউকে কিছু না বলে চলে যাওয়াটা তো নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রশ্ন হয়েই দাড়ায়। তথ্য সংগ্রহ ফরম বিতরন অনুষ্ঠান থেকে চলে যাওয়ার বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য এবায়দুল হক চাঁন বলেন, আমার একটা দাওয়াত ছিলো। এবং আমার জন্য মঞ্চের পিছনে আসনও রাখা ছিলো। তবে আমার ব্যক্তিগত কাজ থাকার কারনে আমি মঞ্চ থেকে নেমে চলে আসছি। তবে কোন অভিমান নিয়ে আসিনি। মঞ্চ থেকে কাউকে কিছু না বলে এবায়দুল হক চাঁন চলে আসছেন কেন জানতে চাইলে মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব মীর জাহিদুল কবির জাহিদ বলেন, কেন তিনি চলে গেছেন তা আমার জানা নেই। তবে এক নেতার কাছ থেকে জানতে পারলাম তার নাকি জরুরি কাছ রয়েছে। তাই তিনি মঞ্চ থেকে চলে গেছেন। বিষয়টি নিয়ে বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মেজবাহ উদ্দিন ফরহাদ সাথে কথা হলে তিনি বলেন, তথ্য সংগ্রহ ফরম বিতরণ কার্যক্রম অনুষ্ঠানে এবায়দুল হক চাঁন আসছিলেন। তবে তাকে পিছনে বসতে দেওয়ার কারনে তিনি মঞ্চ থেকে নেমে চলে যায়। বিষয়টি আমার কাছেও খারাপ লেগেছে। ফরম বিতরণ অনুষ্ঠান শেষে মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক আলতাফ মাহামুদ সিকদার কাছে এবায়দুল হক চাঁন কি কারনে মঞ্চ ত্যাগ করেছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি লক্ষ করেছি মঞ্চে চাঁন ভাই থাকাকালীন তার মন ভালো ছিলো না। তবে কি কারনে তিনি চলে গিয়েছেন তা বলতে পারি না। বিষয়টি সম্পর্কে জানতে চাইলে কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক (বরিশাল বিভাগ) অ্যাডভোকেট বিলকিস জাহান শিরিন বলেন, আমি আসলে এব্যাপারটা জানি না। তবে চাঁন ভাই আসছিলেন। কি কারনে চলে গেছেন তা আমার জানা নেই। তবে কোন ব্যক্তিগত অথবা পরিবারিক কাজ থাকতে পারে সেজন্য মনে হয় চলে গেছে। তবে তাকে পিছনে চেয়ার দেওয়ার কারনে যে চলে গেছে তা আমি জানি না। এছাড়াও লক্ষ করা গেছে, মহানগর বিএনপির ৩০টি ওয়ার্ডের কমিটি গঠন করার লক্ষে তথ্য সংগ্রহ ফরম বিতরণ কার্যক্রম শুরু করা হয়। সেখানে নিয়ম মহানগর বিএনপির ৩০ ওয়ার্ডের নেতারা থাকবে। কিছু সেখানে লক্ষ করা গেছে বিএনপির অঙ্গসংগঠনের সব নেতাকর্মীরাই উপস্থিত ছিলেন। এমন কি অভিযোগ উঠেছে বিগত দিনে যে সব নেতাকর্মীরা মাঠে ছিলেন তাদেরকে বাদ দিয়ে নবসমর্থিত নেকর্মীদের মাঝে ফরম বিতরন করা হয়েছে। এসময় কতিপয় নেতা কর্মীরা নগরীর ২৩ ও ২৪ নং ওয়ার্ড সহ কয়েকটি ওয়ার্ডের তারা নিয়ে যাওয়ার কারনে সত্যিকারের পুরানো নেতারা ফরম পায়নি বলেও ফিরোজ আহমেদকে মঞ্চে বাক বিতন্ডা করতে দেখা গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media




All rights reserved by Daily Shahnama
কারিগরি সহায়তা: Next Tech