বিজ্ঞপ্তি:
দৈনিক শাহনামার অনলাইন ভার্সনে আপনাকে স্বাগতম। জাতীয়, রাজনীতি, খেলাধুলা, বিনোদন সহ সকল সংবাদের সর্বশেষ আপডেট জানতে ভিজিট করুন www.shahnamabd.com
ভোলায় ডাক্তারের অনুপস্থিতিতে নার্সের শিশু প্রসূব করার অভিযোগ, নবজাতকের মৃত্যু

ভোলায় ডাক্তারের অনুপস্থিতিতে নার্সের শিশু প্রসূব করার অভিযোগ, নবজাতকের মৃত্যু

মোকাম্মেল হক মিলন, ভোলা ॥
ভোলা সদর হাসপাতালে ডাক্তারের অনুপস্থিতিতে নার্সদের শিশু প্রসূব করতে গিয়ে গলা ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ উঠেছে। এঘটনায় নবজাতকের মৃত্যু হয়। নবজাতকের গলা ছিড়ে যাওয়ায় অবস্থা বেগতিক দেখে ডেলিভারি শেষ না করে অপারেশন থিয়েটারে মা-শিশুকে রেখে নার্সরা পালিয়ে যায়। ঘটনায় প্রতিবাদ করায় রোগীকে মারধর করা হয়েছে বলে রোগীর স্বজনরা অভিযোগ করেন। শনিবার রাতে ভোলা সদর হাসপাতালে এই ঘটনা ঘটে বলে।
তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, রোগী মরা বাচ্চা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে এই ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া চেষ্টা করছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।এই ঘটনায় ভোলা সদর হাসপাতালের পক্ষ থেকে ৩ দিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়।
ভোলা সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের চরকলি গ্রামের প্রসূতির স্বামী মো: জুয়েল জানায়, শনিবার (২৭ মার্চ) সন্ধ্যায় আমার স্ত্রীর রহিমা বেগম এর প্রসব ব্যথা ওঠে। অবস্থা খারাপ দেখে তাকে ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসি।
প্রথমে হাসপাতালের নার্সরা রোগী দেখে জানান নরমাল ডেলিভারিতে সন্তান হবে। পরে ওপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়ার পরে শিশুটির ডেলিবাড়ি করতে গিয়ে তার গলা সহ মাথা ছিঁড়ে ফেলে নার্স দেবি।
পরে নবজাতকের গলা ছিড়ে যাওয়ায় অবস্থা বেগতিক দেখে সিজার করা লাগবে বলে ডেলিভারি শেষ না করে অপারেশন থিয়েটারে মা-শিশুকে রেখে নার্সরা পালিয়ে যায়। পরে অন্য নার্সরা এসে রোগিকে বেডে পাঠায়।
এই ঘটনায় ভোলা সদর হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা: মোহাম্মদ মহিবুল্লাহ বলেন, গতকাল শনিবার রাতে প্যাটের ভিতরে মৃত বাচ্চা নিয়ে হাসপাতালে একজন রোগী ভর্তি হয়। এসময় তার প্রসব ব্যথা ছিলো। হাসপাতালের নার্সরা তার নরমাল ডেলিভারি করে। এসময় ডেলিভারি শেষ করার আগে রোগীর জটিলতা দেখা দেয়। পরে সকালে কনসালটেন্ট ডাক্তার এসে রোগীর চিকিৎসা করে। এই ঘটনায় ভোলা সদর হাসপাতালের পক্ষ থেকে ৩ দিন সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত টিম গঠন করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media




কারিগরি সহায়তা: Next Tech